বগুড়ায় শিশু ধর্ষণ : দুই লম্পট গ্রেফতার

1642

সাখাওয়াত হোসেন জুম্মা, বগুড়া প্রতিনিধি: দিনের আলোয় শিশু ধর্ষণ ও রাতের আঁধারে ঘরের বেড়া কেটে ঘরে ঢুকে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টায় ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে বগুড়ার শেরপুরে রাজিব ও বেলাল নামের দুই লম্পটকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রাম ও সুঘাট ইউনিয়নের চোমরপাথালিয়া গ্রামে এই দুটি পৃথক ঘটনা ঘটে।

থানা সূত্রে জানা যায়, ১৩ অক্টোবর মঙ্গলবার তিন সন্তানকে বাসায় রেখে তাদের বাবা মা গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জে যায়। ছাত্রীর বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে একই গ্রামের মৃত মনু মিয়ার ছেলে বেলাল হোসেন রাত ১০ টার দিকে টিনের বেড়া কেটে ঘরে প্রবেশ করে। এরপর পঞ্চম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ওই ছাত্রীর পাশে থাকা তার ছোট দুই ভাই লম্পট বেলাল হোসেনের লুঙ্গি টেনে ধরে চিৎকার শুরু করলে সে লুঙ্গি ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ১৪ অক্টোবর বুধবার সকালে ওই ছাত্রীর বাবা বাড়িতে এসে বিষয়টি গ্রামের লোকজনসহ স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানান।

এ বিষয়ে ভবানীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে সালিশ করা বেআইনী, তাই ভূক্তভোগীদের থানায় অভিযোগ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় শেরপুর থানার এসআই সিয়াম হাসান ১৪ অক্টোবর দুপুরে ধর্ষণ চেষ্টাকারী বেলালকে উপজেলার ভবানীপুর বাজার থেকে গ্রেফতার করে থানায় আনে।

অপরদিকে উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের চোমরপাথালিয়া গ্রামে দশ বছরের শিশু ধর্ষণে অভিযুক্ত রাজিব শেখ (৪০) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে তাকে উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের জয়লা জুয়ান গ্রামের বটতলা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

দুই সন্তানের জনক গ্রেফতারকৃত রাজিব শেখ উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের চোমরপাথালিয়া গ্রামের বাবলু শেখ এর ছেলে।

উল্লেখ্য, উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের চোমরপাথালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে চকলেট খাওয়ানোর প্রলোভনে গত ১০ অক্টোবর একই এলাকার বাবলু শেখের ছেলে রাজিব শেখ (৩০) ধর্ষণ করে। একইভাবে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে ৩টার দিকে বাড়িতে কেউ না থাকায় রাজিব আবারও ধর্ষণের চেষ্টা করলে মেয়ের চিৎকার শুনে রাজিবকে ঘরের দরজা বন্ধ করে আটক করা হয়।

এসময় ধর্ষণকারীর দুই চাচি অভিযুক্ত রাজিবকে ছিনিয়ে নিয়ে পালাতে সাহায্য করে। পরে থানায় মামলা হলে পুলিশের এসআই আলহাজ¦ উদ্দিন ১৪ অক্টোবর রাত সাড়ে ৩টার দিকে লম্পট রাজিবকে গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুটো ধর্ষণের ঘটনা মামলা ও অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ২জনকে গ্রেফতার করে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) গাজিউর রহমান বলেন, উপজেলার পৃথক দুটি ধর্ষনের ঘটনায় রাজিব ও বেলাল নামের দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে মামলা দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।